ড্রুপাল, ওয়ার্ডপ্রেস এবং জুমলা এর মধ্যে তুলনামূলক আলোচনা

ড্রুপাল, ওয়ার্ডপ্রেস এবং জুমলা এর মধ্যে তুলনামূলক আলোচনা

ড্রুপাল একটি মুক্ত সোর্স কোড ভিত্তিক কন্টেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সিস্টেম (সিএমএস)। এটা তৈরিতে পিএইচপি প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে। অনেক অভিজ্ঞ এবং অনভিজ্ঞ ডেভেলপার এবং প্রোগ্রামাররা এই ওপেন সোর্স সিএমএস ব্যবহার করতে ভালবাসেন।

ওয়ার্ডপ্রেস এবং জুমলা এর সাথে ড্রুপাল -এর তুলনা করলে দেখা যায় বর্তমান পৃথিবীর সর্ববৃহৎ সরকারী ও বেসরকারী কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর অধিকাংশই তাদের ওয়েবসাইট ডেভালপ করার জন্য ওয়ার্ডপ্রেস বা জুমলা -এর চাইতেও ড্রুপাল বেশী ব্যবহার করছে।

উদাহরণস্বরুপ, বাংলাদেশের সবচাইতে বড় মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান গ্রামীনফোন তাদের ওয়েবসাইট ডেভেলপ করেছে কি দিয়ে আপনি কি তা জানেন? ড্রুপাল দিয়ে তৈরি।

শুধু তাই নয়, ড্রুপাল দিয়ে তৈরি হয়েছে হোয়াইট হাউস, ইউনিভার্সিটি অফ অক্সফোর্ড, লস এঞ্জেলস সিটি, ফ্রেঞ্চ গভার্ণমেন্ট, অলিম্পক গেমস ২০১৬ প্রভৃতি বিশ্ববিখ্যাত সরকারী, বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, শহর বা ইভেন্টের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট।

কারণটা কি?

নিচে আমি ড্রুপাল ব্যবহারের কিছু যৌক্তিক কারণ বর্ণনা করব। পাশাপাশি এর ব্যবহারের সুবিধাসমূহও উল্লেখ করব।

এই প্ল্যাটফর্মটি সর্বজনীন ওয়েব পোর্টাল থেকে ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট তৈরিতেও ব্যবহৃত হয়।

তবে সচরাচর ই-কমার্স সাইট, ব্যাংক, অর্থ লগ্নকারী সংস্থা, পাবলিক ডাইরেক্টরী, বৃহৎ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক নেটওয়ার্কিং সাইটগুলিতেই বেশী ব্যাবহৃত হয়।

কাস্টমাইজেশন সুবিধা বিবেচনায় ড্রুপাল শ্রেষ্ঠ

ড্রুপাল একজন ওয়েব ডেভেলপার কে তার ওয়েবসাইট ডেভালপমেন্ট এর জন্য সব ধরণের কাস্টমাইজেশন এর সুবিধা প্রদান করে।

আধুনিক দৃষ্টিনন্দন পেশাদার ওয়েবসাইট তৈরির জন্য পরিচ্ছন্ন, সকল মাধ্যমে ব্যবহার উপযোগী, থিম এর সহজলভ্যতা নিশ্চিত করার জন্য রয়েছে ড্রুপাল এর নিজস্ব থিম ডাইরেক্টরি।

ড্রুপাল প্রয়োজনে সহজেই নিজের তৈরি থিম ব্যবহারের সুবিধা ও তথ্যগত সাহায্য প্রদান করে।

থিমগুলির একটি বড় সংখ্যা বিনামূল্যে ব্যবহার উপযোগী। এর অর্থ হল এটি অনেক ব্যবসায়ীর ওয়েব ডেভেলপমেন্টের খরচ কমাতে সহায়তা করে।

ড্রুপালের রয়েছে অনলাইনে থিম ও মড্যুউল ইনস্টল করার সুবিধা ও তাদের নিয়ন্ত্রন করার জন্য সহজ অনলাইন ইনটার্ফেস।

হাজার হাজার ডেভেলপার তাদের ক্লায়েন্টদের ওয়েবসাইটগুলি বিকাশের জন্য ড্রুপাল ব্যবহার করে।

ড্রুপাল এর ডাউনলোড এবং এক্সটেন্ড ডাইরেক্টরীতে ২৯ হাজারেরও বেশি মডিউল এবং ২ হাজারও বেশি বিভিন্ন থিম রয়েছে।

ওয়ার্ডপ্রেস এবং জুমলা’র সাথে ড্রুপাল -এর তুলনামূলক আলোচনা

ওয়ার্ডপ্রেস

ওয়ার্ডপ্রেস একটি ক্রেজ এর মত। সাধারণ খালি চোখে যার গুরুত্ব বোঝা যায়। কেননা ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরি ওয়েবসাইট সাধারণত তাদের সুন্দর ডিজাইন, আকর্ষণীয় টাইপোগ্রাফি ও সহজ সরল ব্যবহার উপযোগীতা -এর জন্য বিখ্যাত।

তবে যখনই নিরাপত্তার প্রশ্ন আসে তখনই মার খায়। কারণ, ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা ডিজাইনকৃত ওয়েবসাইটের নিরাপত্তা বলয় সাইবার অপরাধীরা সহজেই ভাঙতে পারে।

সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে ২০১৮ইং সনে সাইবার অপরাধীরা যে সকল ওয়েবসাইট আক্রমন করে নিজেদের দখলে নিয়েছে তাদের মধ্যে শতকরা ৯০ ভাগ ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরি।

দ্বীতিয় অবস্থানে ম্যাগনেটো ৪.৬%, তৃতীয় জুমলা ৪.৩%, চতুর্থ ড্রুপাল ৩.৭%

অতএব বুঝতেই পারছেন, ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা নির্মিত ওয়েবসাইট কতটা নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট ঝুঁকিতে আছে।

একারণেই ওয়ার্ডপ্রেস প্রধানত ছোট এবং মাঝারি আকারের ওয়েবসাইট এবং ব্লগগুলির জন্য সর্বোত্তম পছন্দ।

তবে আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন ইন্ডাস্ট্রির বড় সড় প্রজেক্টগুলোর কাজ করতে ইচ্ছুক হন তবে আপনাকে অবশ্যই ওয়ার্ডপ্রেসের পাশাপাশি আরও শক্তিশালি কন্টেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সিস্টেম এর উপর দক্ষতা তৈরি করতে হবে।

আরও জানতে পড়ুন- ওয়ার্ডপ্রেস কি, কেন শিখব এবং ওয়ার্ডপ্রেস শিখে কিভাবে আয় করা যায়?

জুমলা

জুমলা নিয়ে কাজ করতে হলে কোডিংয়ের কিছু প্রযুক্তিগত জ্ঞান প্রয়োজন। কিন্তু ই-কমার্স সাইট ও সোস্যাল নেটওয়র্কিং সাইট তৈরির জন্য এটি একটি দরকারী সিএমএস

এই কথা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই। তবে জুমলার সীমাবদ্ধতা হচ্ছে- জুমলার জন্য নির্মিত থিম যাকে ট্যামপ্ল্যাট নামে অবিহিত করা হয়- তা মোটেই সহজলভ্য নয়।

এমনকি আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটি আকর্ষণীয় ট্যামপ্ল্যাট খুঁজতে গিয়ে আপনাকে প্রায়ই বিফল হতে হবে।

পরিশেষে বাধ্য হয়ে উচ্চ মূল্যে হয় পেশাদার ডিজাইনার দিয়ে ট্যামপ্ল্যাট ডিজাইন করে নিতে হবে নয়ত অনলাইন থেকে কিনতে হবে।

জুমলা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পড়ুন- জুমলা ব্যবহার করে ওয়েবসাইট তৈরি করার সুবিধাসমূহ

ড্রুপাল কেন ব্যবহার করবেন?

ড্রুপাল সবচেয়ে শক্তিশালী সিএমএস। তবে এটি সবচেয়ে কঠিন। এই প্ল্যাটফর্মটি সব ধরণের ওয়েবসাইটের জন্য উপযোগী।

কেননা এতে রয়েছে শক্তিশালী নিরাপত্তা ব্যবস্থা, সর্বোত্তম কাস্টমাইজেশন সুবিধা, গ্রাহক পর্যায়ের আস্থা অর্জনের সুযোগ, প্রভৃতি।

ড্রুপাল দ্বারা তৈরি ওয়েবসাইটে ওয়েব এডমিনকে সদস্যদের অন্তর্ভুক্তি থেকে শুরু করে সদস্যদের কার্যবিধি নিয়ন্ত্রণের সব ধরণের ক্ষমতা বজায় রাখার জন্য শ্রেষ্ঠ সুবিধা প্রদান করে।

ইন্টারনেটে প্রকাশিত সকল ওয়েবসাইটের মধ্যে ড্রুপালের প্রায় ২% মার্কেট শেয়ার রয়েছে ।

তবে মার্কেট শেয়ার যতই থাকুক না কেন, প্রয়োজনীয়তা ও এর গুরুত্বপূর্ণ বৈষিষ্ঠ্যের আবশ্যিকতার বিচারে একে কখনই অগ্রাহ্য করা যায় না।

সবচাইতে ভালো এপিআই সাপোর্ট করে ড্রুপাল

ড্রুপাল ব্যবহার করে ফেসবুক, টুইটার, গুগল এপ্লিকেশন, গুগল এনালাইটক্যাল, ইউটিউব ইত্যাদি সহ প্রায় প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ আইটি কোম্পানির এপিআই ব্যবহার করে সব ধরণের সামাজিক সাইটগুলির সাথে সংযুক্ত করা যায়।

এটি ড্রুপাল দ্বারা ওয়েব ডেভালপমেন্ট -এর আরেকটি বড় সুবিধা যা আপনি নিশ্চিতভাবে উপেক্ষা করতে পারবেন না!

ড্রুপাল কি সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন সহায়ক?

এসইও বা সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন অনলাইন বিপণন কৌশলগুলির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান।

কেননা আপনার ওয়েবসাইটটি জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন যেমন গুগল সার্চ বা মাইক্রোসফট ও ইয়াহুর সম্মিলিত সার্চ ইঞ্জিন- বিং যদি খুঁজে না পায় বা সঠিকভাবে পড়তে না পারে তবে আপনি আপনার ওয়েবসাইট থেকে আশানুরুপ আয় করতে পারবেন না।

ড্রুপাল এর কোডিং এমনভাবে করা হয়েছে যাতে করে এর দ্বারা সর্বোচ্চ সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন এর সুবিধা গ্রহণ করা যায়।

অর্থাৎ ড্রুপাল এর ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস ও জুমলায় নির্মিত ওয়েবসাইট এর তুলনায় আরও বেশী সার্চ ইঞ্জিন ফ্রেন্ডলি বা বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ করে।

পড়ুন- সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন বা এসইও কি?

দ্রুত পেজ লোডিং সক্ষমতা বিচারে ড্রুপাল এগিয়ে

ড্রুপাল এর আরেকটি চমৎকার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে- এর দ্বারা তৈরিকৃত ওয়েবসাইটের পাতাগুলো দ্রুত লোড হয়।

অর্থাৎ ওয়ার্ডপ্রেস ও জুমলার তুলনায় ড্রুপাল এর পেজ লোডিং স্পিড অপেক্ষাকৃত দ্রুত ও সময় সাশ্রয়ী।

একটি ওয়েবসাইট এর জনপ্রিয়তা হ্রাস-বৃদ্ধির ক্ষেত্রে এই ব্যাপারটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

কেননা একজন ভিজিটর কখনই ধীর গতিতে লোড হয় এমন ওয়েবপেইজ দেখার জন্য সময় নষ্ট করতে চাইবেনা।

এখানেই ড্রুপাল তার শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করে। কারণ অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় ওয়ার্ডপ্রেস ও জুমলায় বিল্ট ইন কোড ও তাতে অধিক সংখ্যক প্লাগইনস ব্যবহার করার প্রয়োজনীয়তার কারণে উক্ত প্লাগইনস এর সচলতার কারণে উভয়ই একত্রে ওয়েবপেজকে ধীর গতিতে লোড হতে বাধ্য করে।

ড্রুপাল নিয়ে আজকের লেখাটা এখানেই শেষ করছি। আশা করছি ভবিষ্যতে ড্রুপাল টিউটোরিয়াল বিভাগে আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ লেখা যুক্ত করতে পারবো।

আশা করি সে পর্যন্ত আমাদের সঙ্গেই থাকবেন।

ধন্যবাদ সবাইকে
সাব্বির আহমদ রাহিক

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *