জুমলা ব্যবহারের সুবিধা

জুমলা ব্যবহার করে ওয়েবসাইট তৈরি করার সুবিধাসমূহ

জুমলা হচ্ছে ওয়েব এপ্লিকেশন সফটওয়্যার সমূহের এর মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি কন্টেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সিস্টেম বা সিএমএস। জুমলা আত্মপ্রকাশ করে ২০০৫ ইং সনে। জুমলা স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদার দ্বারা তৈরি ও হালনাগাদকৃদ একটি মুক্ত সফটওয়্যার প্রকল্প।

জুমলা ব্যবহার করে ওয়েবসাইট তৈরি করার সুবিধাসমূহ ও জনপ্রিয়তার বিচারে ওয়ার্ডপ্রেস এর পরেই জুমলার অবস্থান।

প্রতিষ্ঠার পর থেকেই জনপ্রিয়তা, গ্রহণযোগ্যতা, নিরাপত্তা প্রদান, নমনীয়তা প্রভৃতি দিক বিবেচনা করে জুমলা অন্যান্য সিএমএস এর চাইতে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে। কন্টেন্ট ম্যানেজম্যান্ট ইন্ডাস্ট্রির ৬.৩% ও সর্বমোট প্রকাশিত ওয়েবসাইটের মধ্যে ৩.১% বা প্রায় ৫৮ মিলিয়ন ওয়েবসাইট জুমলা দ্বারা তৈরি করা হয়েছে।

জুমলা ব্যবহার করার সুবিধাসমূহ

জুমলা দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করার সুবিধসমূহ নিম্নরূপ-

সহজে ব্যবহারযোগ্য

এর সবচাইতে সুবিধাজনক দিক হচ্ছে- জুমলা ব্যবহার করে একটি কার্যকর ওয়েবসাইট ডিজাইন করা খুবই সহজ। এর রয়েছে লেখা, ছবি, অডিও-ভিডিও প্রভৃতি ডিজিটাল কন্টেন্ট প্রকাশ করার জন্য খুব সহজভাবে ব্যবহারযোগ্য অনলাইন এপ্লিকেশন টুল।

যা ব্যবহার করে একজন সাধারণ মানের ওয়েবসাইট ডিজাইনারও খুব সহজে একটি দৃষ্টিনন্দন ওয়েবসাইট প্রকাশ করতে সক্ষম হবেন।

জুমলার সবচাইতে সুবিধাজনক দিক হচ্ছে- কন্টেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সফটওয়্যার হলেও জুমলা ব্যবহার করে কোন প্রকার কোডিং বা প্রোগ্রামিং ভাষা না জানা ব্যাক্তিও সহজেই ওয়েব ডিজাইন করতে পারবেন।

ওয়েবসাইটের সামগ্রিক বৈশিষ্ঠ্যসমূহ নিয়ন্ত্রণ করার সুবিধা বিবেচনায় জুমলা

জুমলা একজন ওয়েবসাইট ডিজাইনার ও ডেভালপার কে তার ওয়েবসাইটের উপর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখতে সহায়তা করে।

ওয়েবসাইটের প্রতিটি পাতা বা ডিজিটাল কন্টেন্টকে তাদের বিভাগ অনুযায়ী আলাদাভাবে বিন্যস্ত করে রাখাসহ, সাধারণ দর্শনার্থী ও অনুমোদিত সদস্যদের মধ্যে কে কোন শ্রেণী বা বিভাগের পাতা বা কন্টেন্ট দেখতে পারবেন বা ব্যবহার করতে পারবেন তা নির্ধারণ করে দেয়া জুমলার মাধ্যমে সম্ভব হয়।

এছাড়াও জুমলার অন্যান্য সুবিধাদির মধ্যে রয়েছে একজন এডমিনের হাতে একটি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটের সদস্যদের আবেদন গ্রহণ পদ্ধতি নির্ধারন, বর্জন, নতুন সদস্য তৈরি, তাদের ক্ষমতা নির্ধারণ করে দেয়া, সাধারণ দর্শনার্থীদের কমেন্ট বা মতামত এপ্রুভ করার ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে।

একজন জুমলা এডমিন তার ডিজাইনকৃত ওয়েবসাইটে তার পছন্দ অনুযায়ী দৃশ্যমান অংশে তার ইচ্ছামত কন্টেন্ট যেমন এড, অ্যাফিলিয়েট লিংক, সাবস্ক্রিপশন ফর্ম, কন্টাক্ট ফর্ম, ছবি, ডিজিটাল কন্টেন্ট প্রভৃতি বসাতে সক্ষম হন।

অনলাইনে আয় করতে ইচ্ছুক একজন ওয়েব ডিজাইনারের জন্য এটি একটি অত্যন্ত কার্যকরী সুবিধা যা কিনা ওয়ার্ডপ্রেসে সহজে পাওয়া যায় না। ওয়ার্ডপ্রেসে এ সুবিধা পাওয়ার জন্য উচ্চ মূল্যে প্লাগইনস কিনে ব্যবহার করতে হয়।

গঠনশৈলী নিজের মত করে পরিবর্তন ও তথ্য সংরক্ষণ করে রাখার সুবিধা

জুমলা ডিজাইন করার জন্য পিএইচপি প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে।

এছাড়া ওয়েবসাইটে প্রদানকৃত তথ্য জমা রাখার জন্য এটি মাইএসকিউএল, মারিয়া ডিবিসহ অন্যান্য বেশ কয়েকটি ডাটাবেজ সফটওয়্যার সমর্থন করে।

জুমলা দ্বারা ডিজাইনকৃত ওয়েবসাইটের বাহ্যিক ডিজাইন কেমন হবে তা নির্ভর করে জুমলাতে কি ট্যামপ্লেট ব্যবহার করা হয়েছে তার উপর।

ওয়ার্ডপ্রেসে যেমন থিম এর মাধ্যমে সাইটের গঠনশৈলী পরিবর্তন করা হয়, জুমলার ক্ষেত্রে আমরা সেই থিমকেই ট্যামপ্লেট হিসেবে জানি। তবে ওয়ার্ডপ্রেসের জন্য যেমন অনলাইনে প্রচুর মানসম্পন্ন ফ্রি থিম পাওয়া যায় জুমলার ক্ষেত্রে একটি ভাল মানের টেমপ্লেট পাওয়া ততটা সহজ নয়।

এক্ষেত্রে ব্যবহারকারীকে প্রায় ক্ষেত্রেই অল্প কিছু ডলার খরচ করে ভাল মানের জুমলা টেমপ্লেট কিনে ব্যবহার করতে হয়। একটি মানসম্পন্ন জুমলা ট্যামপ্লেট এর মূল্য ২০ ডলার থেকে শুরু করে ১৫০ ডলার পর্যন্ত হতে পারে।

এছাড়া জুমলা ওয়েবসাইটে ব্যবহার করার জন্য রযেছে একজন ব্যবহারকারী খুব সহজেই নিজের মত করে মড্যুউল তৈরি করে নিতে পারেন।

জুমলার নিজস্ব ডাইরেক্টরীতে রয়েছে প্রায় ৮০০০ এর উপর পেশাদার মানের জুমলা এক্সটেনশন অর্থাৎ মড্যুউল ও প্লাগইনস।

ব্যবহারকারী তার প্রয়োজনমত খুব সহজেই জুমলার বিল্টইন ইন্টারফেস ব্যবহার করে অনলাইনেই উক্ত এক্সটেনশন ইনস্টল করে ওয়েবসাইটে আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য যোগ করে নিতে পারেন বা তার ওয়েবসাইটের প্রদানকৃত সেবার পরিধি বিস্তৃত করতে পারেন।

ওয়েব এপ্লিকেশন সফটওয়্যার – জুমলা ব্যবহার করে অনলাইনে কিভাবে টাকা আয় করবেন?

আপনি কি আপনার ওয়েবসাইট ব্যবহার করে অনলাইনে টাকা আয় করতে চাইছেন।

জুমলা আপনাকে আপনার অভিষ্ট লক্ষ্য অর্জনে সর্বোচ্চ সুবিধা প্রদান করতে সক্ষম।

একজন ব্যবহারকারী খুব সহজেই জুমলা এক্সটেনশন ব্যবহার করে তার ওয়েবসাইটকে একটি কার্যকর ই-কমার্স সাইট হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবেন।

এছাড়াও আছে খুব সহজেই এডসেন্স ইন্টিগ্রেশন, এফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য মানসম্পন্ন এক্সটেনশন ব্যবহারের সুবিধাসহ টিউটোরিয়াল সাইট ডিজাইনের জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরণের কার্যকর এক্সটেনশন এর সহজলভ্যতা।

জুমলা বিখ্যাত তার সোস্যাল সাইট তৈরি করার সুবিধা প্রদানের জন্য।

আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটে অনেক বেশী সদস্যের অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করতে ইচ্ছুক হন এবং তাদের বিভিন্ন ধরণের সেবা প্রদানের বিনিময়ে অর্থ উপার্জন করতে চান তবে জুমলা হতে পারে আপনার জন্য জনপ্রিয় সিএমএসগুলোর মধ্যে প্রথম পছন্দ।

একটি কার্যকর মেম্বারশিপ বা মতামত বিনিময়ের জন্য উপযুক্ত ফোরাম সাইট তৈরি করার জন্য জুমলাতে বিল্ট-ইন সুবিধা রয়েছে। এছাড়া এক্সটেনশন ব্যবহারের সুবিধাতো আছেই।

আপনি যেমন জুমলার মাধ্যমে আপনার সদস্যদের নিয়ন্ত্রণ করার পূর্ণ ক্ষমতা পাবেন। এছাড়াও সদস্যদের মাধ্যমে লিখিত প্রবন্ধ, নিবন্ধ বা তথ্যভিত্তিক লেখা আপনার ওয়েবসাইটে প্রকাশ করার মাধ্যমে উক্ত ওয়েবসাইটের বৈশ্বয়িক গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধির সুবিধা নিতে পারবেন।

এতে করে আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটর যেমন বাড়বে, সেই অনুপাতে আপনার আয়ও বৃদ্ধি পাবে।

নিরাপত্তা সুবিধা বিবেচনায় জুমলার অবস্থান

জুমলা অন্যান্য অনেক সিএমএস এর চাইতে অনেক বেশী নিরাপদ। বিশেষ করে ওয়ার্ডপ্রেস এর চাইতে তো অবশ্যই।

কেননা সমগ্র বিশ্বের সাইবার অপরাধী বা হ্যাকারদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে ওয়ার্ডপ্রেস নির্মিত ওয়েবসাইট।

তারপরও নিরাপত্তার প্রশ্নে জুমলা ডেভালপার টিম খুবই সতর্ক দৃষ্টি রাখেন।

নিয়মিত জুমলার বিভিন্ন সিকিউরিটি আপডেট প্রকাশ করে জুমলাকে আরও বেশী ব্যবহার উপযোগী ও নিরাপদ করার জন্য তাদের প্রচেষ্টা কোনো কমতি নেই।

প্রোগ্রামিং বিষয়ক সমস্যা সমাধানে অনলাইনে সাহায্য গ্রহণের সুবিধা

জুমলা স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় দ্বারা তৈরিকৃত বলে আপনি জুমলায় ডিজাইন বা প্রোগ্রমিং সংশ্লিষ্ট যেকোন সমস্যায় পড়লে অনলাইনে তাদের সাহায্য নিতে পারবেন।

জুমলার মাধ্যমে ওয়েব ডিজাইন ও ডেভালপমেন্ট এর জন্য প্রয়োজনীয় যেকোন সাহায্য প্রদানের লক্ষ্যে বিশেষভাবে পরিচালিত জুমলার নিজস্ব অফিসিয়াল ওয়েব পোর্টাল রয়েছে।

আপনি সেখান থেকে যে কোন সময় তাদের ফোরামে প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে আপনার যে কোন জুমলা সংশ্লিষ্ট প্রোগ্রামিং সমস্যার সমাধান খুঁজে নিতে পারেন।

এছাড়াও সমগ্র বিশ্ব প্রচুর জুমলায় দক্ষ ওয়েব ডেভালপার রয়েছে।

আপনি যে কোন প্রয়োজনে একটু খুঁজলেই তেমন কাউকে বের করতে পারবেন যে কিনা আপনার সকল সমস্যার একটা গ্রহণযোগ্য সমাধানের পথ বলে দিতে পারবে।

এই সবকিছুর পরও ব্যক্তি উদ্যোগে প্রকাশিত জুমলা টিউটোরিয়াল বিষয়ক বিভিন্ন ওয়েবসাইটতো আছেই।

পরিশেষে সবাইকে লেখাটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে এখানেই শেষ করছি।

জুমলা বিষয়ক আরও কিছু জানার থাকলে নিচের কমেন্ট বক্স ব্যবহার করে আমাকে প্রশ্ন করুন। আশা করি ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনার প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন।

ধন্যবাদ সবাইকে
সাব্বির আহমদ রাহিক

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *